মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd জুন ২০২০

করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রকল্পের সুফলভোগীদের মাঝে বিশেষ ঋণ ও মুরগির বাচ্চা এবং সংগঠনের সভাপতি ও ম্যানেজারদের সম্মানী বিতরণ।


প্রকাশন তারিখ : 2020-06-03

অদ্য ০৩.০৬.২০২০ খ্রিস্টাব্দ রোজ বুধবার বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড) কুমিল্লা কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের হতদরিদ্র সুফলভোগীদের অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার প্রেক্ষিতে বিশেষ ঋণ ও মুরগীর বাচ্চা এবং সুফলভোগীদের দ্বারা সৃজনকৃত সংগঠনের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য উক্ত সংগঠনসমূহের  সভাপতি ও ম্যানেজারদের মাঝে সম্মানী বিতরণ করেন বার্ডের মহাপরিচালক জনাব মোঃ শাহজাহান।
এ প্রকল্পের আওতায় কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার মোট ২৭৩ জন সুফলভোগীকে তাদের জীবনমান উন্নয়ন ও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার লক্ষে প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা করে মোট ৬৮ লক্ষ ২৫ হাজার টাকার বিশেষ ঋণ বিতরণ করা হয়েছে এবং উক্ত প্রকল্পভুক্ত এলাকায় সৃজনকৃত সংগঠনের ১৪৮ জন সভাপতি ও ম্যানেজারদের মাঝে সংগঠনের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য মোট ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ৮০০ টাকার সম্মানী বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও উক্ত প্রকল্পভুক্ত এলাকার সুফলভোগীদের আয়বর্ধন ও পুষ্টি চাহিদা পূরণে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন ৪২ দিন বয়সের সোনালী ও ফাউমি জাতের মুরগির বাচ্চা মোট ১৫০ জন সুফলভোগীর মাঝে ২০টি করে মোট ৩০০০ বাচ্চা বিতরণ করা হয়েছে। ইহা ছাড়াও আগামি তিনদিন পর্যায়ক্রমে প্রকল্প এলাকার সুফলভোগী এবং সভাপতি ও ম্যানেজারদের মাঝে বিশেষ ঋণ ও সম্মানী বিতরণ করা হবে এবং সর্বমোট ১০০০ জনের মাঝে বিশেষ ঋণ হিসেবে ২ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা এবং ৫২৭ জন সভাপতি ও ম্যানেজারদের মাঝে সম্মানী হিসেবে ২১ লক্ষ ২৪ হাজার ৬০০ টাকা বিতরণ করা হবে। করোনা মহামারির কারণে সীমিত পরিসরে এবং সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে প্রকল্পের সুফলভোগীদের মাঝে আয় বর্ধনমুলক কর্মকান্ডের অংশ হিসেবে ঋণ, উন্নত জাতের মুরগির বাচ্চা ও সম্মানী বিতরণ করা হয়। বিতরণ অনুষ্ঠানে বিতরণকৃত সম্মানী, বিশেষ ঋণ ও মুরগির বাচ্চা বিতরণ সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের নির্দেশনা প্রদান করা হয় এবং করোনা মহামারি মোকাবিলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ প্রদান করা হয়। বিতরণ কর্মসূচিতে আরোও উপস্থিত ছিলেন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ও পরিচালক (প্রশাসন) ড. মোঃ শফিকুল ইসলাম, প্রকল্পের কম্পোনেন্ট লিডার (সংগঠন ও জীবিকায়ন) জনাব সালাহ উদ্দিন ইবনে সাঈদ, সহকারী প্রকল্প পরিচালক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন ভূঁঞা, কম্পোনেন্ট লিডার (প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন) ডা. বিমল চন্দ্র কর্মকার, কম্পোনেন্ট লিডার (মৃত্তিকা উন্নয়ন) বাবু হোসেন ও সদর দক্ষিণ উপজেলার মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান বেগম নাছিমা আক্তার পুতুলসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ। ইতোমধ্যে এ প্রকল্পের  তিনটি উপজেলায় মোট ২৭৭ টি গ্রাম উন্নয়ন সংগঠন সৃজন করা হয়েছে এবং ১১,৪২২ জন সুফলভোগী এ সকল সংগঠনের সদস্যপদ গ্রহণ করেছেন। উল্লেখ্য যে, প্রকল্পটি সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য বার্ডের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও প্রকল্পের কাজে নিয়েজিত মাঠ সহকারী এবং গ্রাম সংগঠনগণ দায়িত্ব পালন করছেন।

 



Share with :

Facebook Facebook